পূর্বধলায় থানায় অভিযোগ দায়ের

ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে কবিতা লিখে ফেসবুকে ব্যাপক সমালোচিত মনি কর্মকার

প্রকাশিত: ৫:২৪ পূর্বাহ্ণ, এপ্রিল ১৬, ২০২০

মুক্তচিন্তার নামে অন্যের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়া ‘ফ্যাশন’ হয়ে দাঁড়িয়েছে। ধর্মের বিরুদ্ধে কেউ কিছু লিখলেই, তারা হয়ে যান মুক্তচিন্তা অধিকারী। এখানে মুক্তচিন্তা নয় বরং নোংরামি, পর্ন। এটা সম্পূর্ণ নোংরা মনের পরিচয়, বিকৃত মনের পরিচয়।

নেত্রকোণার পূর্বধলায় জাতীয় মহিলা সংস্থা নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান মনি রানী কর্মকার ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে কবিতা লিখে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে তার নিজের টাইমলাইনে পোস্ট করার পর ভাইরাল হয়ে ব্যাপক সমালোচিত হয়েছেন। তিনি সম্পূর্ণ নোংরা ও বিকৃত রুচির পরিচয় দিয়েছেন বলে বিভিন্ন মহলের ঝড় উঠেছে।

পহেলা বৈশাখে (১৪ এপ্রিল) ফেসবুকে ‘তোরা চাল চোর’ নামের একটি কবিতায় কুরুচিপূর্ণ শব্দ ব্যবহারের মাধ্যমে তিনি ‘ধর্মীয় ভাবমানসে চরম আঘাত’ দিয়েছেন। তিনি কবিতায় দুটি লাইনে উল্লেখ করেছেন “প্রকাশ্যে তোদের দাড়ি টুপি নামাজ রোজা, আড়ালে তোরা হারাম খোর” এ নিয়ে ফেসবুকে চরম ঘৃণা ও ব্যাপক সমালোচনা মুখে পরেছেন মনি রানী কর্মকার। ফেসবুককারিদের তোপের মুখে তিনি তার কবিতাটি ডিলেট করে দিয়েছেন এবং পরবর্তী পোস্টের মাধ্যমে তিনি নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ধর্মীয় অনুভূতি ও মূল্যবোধে আঘাত করে এ রকম যে কোনো কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে বর্তমান সরকার কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে সর্বদা সচেতন রয়েছে। তাই পূর্বধলা উপজেলার সকল ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। ধর্মীয় অনুভূতি ও মূল্যবোধে আঘাত করে কবিতা লেখার দায়ে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী করেন সর্বস্তরের তৌহিদী জনতা।