পূর্বধলায় আইন শৃঙ্খলার অবনতি, বেড়েই চলেছে দুঃসাহসিক চুরি

প্রকাশিত: ৪:৪৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২৪, ২০২০

‘মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার’ স্লোগানে স্লোগানে মুখরিত হলেও নেত্রকোণার পূর্বধলায় আইন শৃঙ্খলার ব্যাপক অবনতি দেখা দিয়েছে। রাত পুহালেই চুরি খরব শোনা যাচ্ছে। আশংকাজনক হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে দুঃসাহসিক চুরি। গত এক সপ্তাহে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে ৪/৫টি মোটর সাইকেল চুরি, দোকানঘরে চুরি হয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। চুরি বেড়ে যাওয়ায় জনমনে আতংক বিরাজ করছে। এর আগেও বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল চুরির ঘটনা ঘটেছিল। বর্তমানে পূর্বধলায় আইন শৃঙ্খলার ব্যাপক অবনতি হয়েছে বলে সাধারণ লোকজনের অভিযোগ হয়েছে। আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভা করেও কোন শৃঙ্খলা স্বাভাবিক করতে পাচ্ছেনা। তাছাড়া ভোরে শ্যামগঞ্জ বিরিশিরি সড়কে অবৈধ মালামাল পাচারকালে ঘটছে ভয়াবহ সড়ক দূর্ঘটনা। কাঙ্খিত অভিযোগ করেও প্রয়োজনীয় আইনি সহায়তা পাচ্ছেনা ভুক্তভোগীরা।

পূর্বধলা বাজারের মনি জুয়েলার্স ও সাহা সু-ষ্টোরে গত শুক্রবার রাতে দুঃসাহসিক চুরির ঘটনা ঘটেছে। এর পূর্বেও বেশ কয়েকটি দোকানে চুরি হয়েছে। গতকাল সোমবার রাতে উপজেলার বাংলালিংক টাওয়ার সংলগ্ন বাসায় পালসার (রেজিষ্ট্রেশন নং ঢাকা মেট্রো ল ৩৯-২৯৪৪) মটরসাইকেল এবং পূর্বধলা কলেজ রোডে গত রবিবার রাতেও আব্দুল মোতালেব নামের এক ব্যক্তির বাসা থেকে টিভিএস (আরটিআর-১৬০ সিসি, রেজি নং- ময়মনসিংহ ল ১১-৭৭৩১) মোটরসাইকেল চুরি হয়েছে। এ বিষয়ে পূর্বধলা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়।

জানা গেছে, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ও চুরি ডাকাতি বন্ধে বিশেষ কোন ভূমিকা না থাকলেও আটক বাণিজ্যে নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করেন তারা। তাছাড়াও প্রায়ই বিশেষ অভিযানের রবাত দিয়ে রাতে উপজেলার প্রত্যন্ত এলাকা থেকে কিছূ সংখ্যক লোকজনকে আটক করা হলেও বিভিন্ন মামলা দিয়ে আদালতে প্রেরণ করেন নামে মাত্র দু’য়েক জনকে। বাকীদের আর্থিক লেনদেনের মাধ্যমে ছেড়ে দেয়া হয় বলে জানা গেছে। আটক বাণিজ্যের সুবিধার্থে মাঝে মাঝে টহল দিলেও তাতে কোন উপকার পাচ্ছেনা সাধারণ লোকজন।

এ ব্যাপারে পূর্বধলা থানার অফিসার-ইন-চার্জ (ওসি) মোহাম্মদ তাওহীদুর রহমান জানান, চুরির ঘটনায় এখনও কাউকে আটক করা যায়নি। বাজারে টহল বৃদ্ধি করছি এবং বাজারে সিসি ক্যামেরার আওতায় আনা হবে।