সড়কের মাঝখানে প্রায় অর্ধ-শতাধিক বিদ্যুতের খুঁটি রেখেই চলছে নেত্রকোনার সঙ্গে ময়মনসিংহের আঞ্চলিক সড়ক নির্মাণ কাজ

প্রকাশিত: ৯:৩৬ পূর্বাহ্ণ, জানুয়ারি ২৮, ২০২১

সড়কের মাঝখানে প্রায় অর্ধ-শতাধিক বিদ্যুতের খুঁটি রেখেই চলছে নেত্রকোনার সঙ্গে ময়মনসিংহের গৌরীপুর হয়ে ঈশ্বরগঞ্জ সড়ক ও জনপথ বিভাগের নতুন আঞ্চলিক সড়ক নির্মাণ কাজ।

সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবরে বৈদ্যুতিক খুঁটি অপসারণে জন্য একাধিকবার আবেদন ও অবগত করা হলেও খুঁটিগুলো অপসারণের কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি।এদিকে প্রকল্পের কাজ নির্ধারিত সময়ে সম্পন্ন করতে খুঁটিগুলো রেখেই সড়কের কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার। এ নিয়ে স্থানীয়দের মাঝে ুব্দ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টির পাশাপাশি মারাত্মক দুর্ঘটনার আশংকা দেখা দিয়েছে।
নেত্রকোণা সড়ক ও জনপথ বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গত ২০১৯ সালের নভেম্বর মাসে ময়মনসিংহের সার্কিট হাউজের জনসভায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ময়মনসিংহের অন্যান্য উন্নয়ন প্রকল্পের সাথে ২৬১ কোটি টাকা বরাদ্দে উল্লেখিত নতুন সড়ক নির্মাণকাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেন।

ভিত্তি প্রস্তরের পর থেকে এ সড়ক নির্মাণের কাজ শুরু করে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রানা বিল্ডার্স (প্রাঃ) লিঃ, মেসার্স রিজভী কন্সষ্ট্রাকশন ও মোজাহার এন্টারপ্রাইজ (প্রাঃ) জেভি। স্থানীয়রা জানান, এ নির্মাণাধীন সড়কের মাঝখানে প্রায় অর্ধশত পল্লী বিদ্যুৎ ও পিডিবি’র বিদ্যুতের খুঁটি রেখেই কাজ সম্পন্ন করতে যাচ্ছে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান। এছাড়া রাস্তা ঘেঁষে রয়েছে আরো অনেক খুঁটি। এসব খুঁটি অপসারণ না করে সড়কের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করলে প্রতিনিয়িত মারাত্মক দুর্ঘটনার সম্মুখীন হতে হবে জনসাধারণকে।এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট সড়কের ঠিকাদার হোসেন আহমেদ পান্না জানান, সড়কের মাঝখানের বিদ্যুতের খুঁটি অপসারণের জন্য নেত্রকোণা সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলী বরাবরে একাধিকবার আবেদনের পাশাপাশি মোখিকভাবে অবগত করা হলেও এখনো পর্যন্ত খুঁটিগুলো অপসারণ করা হয়নি। এদিকে নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে সড়কের কাজ সম্পন্ন করতে বাধ্য হয়ে সড়কে খুঁটি রেখেই নির্মাণ কাজ অব্যাহত রেখেছেন বলে জানান তিনি।

এ বিষয়ে নেত্রকোণা সড়ক ও জনপথ বিভাগের (সওজ) নির্বাহী প্রকৌশলী হামিদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, এ নির্মাণাধীন সড়কে বৈদ্যুতিক খুঁটিগুলো দ্রুত অপসারণের জন্য সংশ্লিষ্ট নেত্রকোনা পিডিবি ও পল্লী বিদ্যুৎ কর্তৃপরে নিকট খুঁটি অপসারণের সার্বিক ব্যয়ের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে। অপরদিকে ময়মনসিংহ পল্লী বিদুৎ সমিতিকেও খুঁটি অপসারণের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে।

ময়মনসিংহ পিডিবিকে খুঁটি অপসারনে এখনো কোন টাকা পরিশোধ করা হয়নি। তিনি আরো জানান, যাদেরকে খুঁটি অপসারণের টাকা পরিশোধ করা হয়েছে তারাও এখনো তা করেনি। তাদেরকে প্রশ্ন করেন তারা কেন অপসারণ করছে না? এতে সড়ক নির্মাণ কাজে স্বাভাবিক গতি ব্যাহত হচ্ছে বলে তিনি জানান।

এ বিষয়ে ময়মনসিংহ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-৩ এর জেনারেল ম্যানেজার মি. খন্দকার শামীম আলম জানান, সড়কে বৈদ্যুতিক খুঁটি অপসারণের জন্য সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে খুঁটি অপসারণের জন্য কাজ বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে। এক পর্যায়ে তিনি বলেন, দ্রুততর সময়ের মধ্যে রাস্তার বিদ্যুৎতের খুঁটিগুলো অপসারণ করা হবে।