মদন গোবিন্দশ্রী বাজারে ঘর ভাঙ্গাকে কেন্দ্র করে পাল্টা মামলা

প্রকাশিত: ২:০১ অপরাহ্ণ, জুলাই ৬, ২০২১

মো. মোশারফ হোসেন, মদন (নেত্রকোণা): নেত্রকোণা জেলার মদন উপজেলা গোবিন্দশ্রী বাজারে গত ২৬ জুন এক সংর্ঘষ হয়, এতে গোবিন্দশ্রী বাজারের পাশে উচুহাটি মৃত হাদিস খান এর ছেলে রিদন খান এর দোকান ভাংচুর করে বাজার কমিটির লোকজন। বাড়িতে হামলা চালিয়ে দুই নারীকে গুরুতর আহত করে। উক্ত নারীরা এখন পর্যন্ত মদন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

৫ জুলাই সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, গোবিন্দশ্রী বাজারে বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মামুন মিয়া গত ৪ জুলাই মদন থানা একটি অভিযোগ দাখিল করেন এবং ঐ দিনেই মামলা রেকর্ড করা হয়।

এজাহার সূত্রে জানা যায় ২৬ জুন সকাল ১১ টায় গোবিন্দশ্রী গ্রামের মৃত রাজধর আলীর ছেলে সোহেল (৩২) এর দোকানের মালামাল চুরি করে নিয়ে যায় বিবাদী তরুন মিয়া সহ ১৫ জনকে আসামী করে মদন থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। যার বাদী গোবিন্দশ্রী বাজারের সাধারণ সম্পাদক।

মামলার বিবরণে উল্লেখ করা হয়েছে যে, মালামাল সহ নগদ ৩ লক্ষ টাকা বিবাদীগণ চুরি করে নিয়ে যায়। গোবিন্দশ্রী ভূইয়াহাটী গ্রামের নয়ন মিয়ার ছেলে অন্তর মিয়া যার বয়স ১৩ বছর তাকে ১৪নং আসামী করা হয়েছে। তার সহোদর ভাই সাগর মিয়া তার বয়স ১৪ বছর ও ৬নং আসামী পিতা মৃত খোকন মিয়া এর ছেলে ইয়াছিন মিয়া সে ময়মনসিংহ কৃষি উচ্চ বিদ্যালয়ে ১০ম শ্রেণির নিয়মিত ছাত্র। মামলার বাদী এ প্রতিনিধিকে বলেন আমাদের মামলা করার ইচ্ছা ছিলনা, কিন্তু রুবেল মিয়া মামলা করাতে আমরা মামলা করেছি। তিনি আরও বলেন আমরা বাজার কমিটি ইউপি চেয়ারম্যান সাহেবকে মিমাংশা করার জন্য দায়িত্ব দিয়েছিলাম তাই মিমাংশা না হওয়াতে আমরা মামলা করেছি।

বিবাদী তরুণ মিয়ার নিকট মামলার সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি মুটোফোনে জানান আমি নিয়মিতভাবে ঢাকা বসবাস করছি,আমি যতটুকু শুনলাম গোবিন্দশ্রী বাজার কমিটি আমার পৈত্রিক সম্পত্তি অবৈধভাবে নেওয়ার জন্য পায়তারা করছে। গত ২৬ জুন মারামারি হয়েছে কিন্তু মামলা হয়েছে ৪ জুলাই। আমার নামে যে মামলাটি দায়ের করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও বানোয়াট মামলা। ঘরের মালিক সোহেলের সাথে কথা বলে জানা যায় আপনার দোকান ভাংচুর হয়েছে তাহলে মামলার বাদী আপনি হলেন না কেন? তিনি বলেন আমি গোবিন্দশ্রী বাজারে ব্যবসা করি তাই বাজার কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক আমার চলতে হয়। তিনি আরও বলেন আমার দোকানের নগদ টাকা ও মালামালসহ গত ২৬ জুন ১১ টায় ৩ লক্ষ টাকা চুরি করে নিয়ে যায় তরুণের লোকজন।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন এর নিকট জানতে চাইলে তিনি বলেন পাল্টা-পাল্টি মামলা হয়েছে। মামলার তদন্ত চলছে। আসামীদের গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত আছে।